Share
জুট ইন্ডাস্ট্রিয়াল ভিলেজ তৈরিতে সহায়তা করবে দক্ষিণ কোরিয়া

জুট ইন্ডাস্ট্রিয়াল ভিলেজ তৈরিতে সহায়তা করবে দক্ষিণ কোরিয়া

বাংলাদেশে ‘জুট ইন্ডাস্ট্রিয়াল ভিলেজ’ তৈরির জন্য আর্থিক ও প্রযুক্তিগত সহায়তা দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছে কোরিয়া টেক্সটাইল মেশিনারি কনভারজেন্স রিসার্র্চ ইনস্টিটিউট (KTMCRI)। এ ভিলেজে বহুমুখী পাটপণ্যের উৎপাদন ও রপ্তানি বৃদ্ধির জন্য জুট টেকনোলজি রিসার্চ ইনস্টিটিউট, ভিসকোস পাইলট প্রজেক্ট, বহুমুখী পাটপণ্য কারখানা, জুট এক্সপোর্ট ইন্সপেকশন সেন্টার, জুট বাংলাদেশের পাটশিল্পের উন্নয়নেএক্সিবিশন হল ও আমদানি-রপ্তানি সাপোর্ট সেন্টার প্রতিষ্ঠা করারও প্রস্তাব করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে আজ বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী, বীরপ্রতীককে দক্ষিণ কোরিয়ার ব্যবসায়ী প্রতিনিধিদল এ প্রস্তাব দিয়েছে।

প্রতিনিধিদলের এ প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে মন্ত্রী জানান, বাংলাদেশের পাটশিল্পের উন্নয়নে এ প্রস্তাব খুবই ইতিবাচক। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে প্রস্তাবটির বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

বৈঠকে মন্ত্রী বলেন, সরকার বহুমুখী পাটপণ্য উৎপাদন বৃদ্ধিতে কাজ করছে। বিজেএমসি’র পাট কলসমূহে গতানুগতিক বস্তা উৎপাদনের পাশাপাশি বহুমুখী পাটপণ্যের উৎপাদনের জন্য বিভিন্ন প্রকল্প প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের পাশাপাশি বৈদেশিক অর্থায়নে ও প্রযুক্তিগত সহায়তায় বিভিন্ন অবকাঠামো তৈরির পদক্ষেপ ইতিবাচকভাবে মূল্যায়ন করবে সরকার। বতর্মানে বিজেএমসির ২৬টি মিল চালু আছে, বন্ধ পাটকল পুনরুজ্জীবিত করার জন্য পুরাতন মেশিনের পরিবর্তে আধুনিক মেশিন সংযুক্তকরণে কাজ দ্রুত করা হবে।

চীনের ব্যবসায়ী প্রতিনিধি হিসেবে এ সময় উপস্থিত ছিলেন, কোরিয়া টেক্সটাইল মেশিনারি কনভারজেন্স রিসার্চ ইনস্টিটিউটের সেন্টার ম্যানেজার লি ঝুন হো, সিনিয়র রিসার্চার উন ইয়াঙ ঝুন, রিসার্চার ঝি ঝুঙ্গমিন। এছাড়া বৈঠকে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত সচিব রীনা পারভীন, বিজেএমসি’র চেয়ারম্যান শাহ মোঃ নাসিম, পাট অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ শামসুল আলম, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আবু বকর সিদ্দিক-সহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Comment