Monday, July 20মাদার টিভি
Shadow

টাকার জন্য নেগেটিভ রিপোর্ট পজিটিভ করা হতো সাহাবউদ্দিনে!

করোনাকালে একের পর এক উঠে আসছে চিকিৎসা জালিয়াতি। রিজেন্ট হাসপাতাল ও জেকেজির পর এবার রাজধানীর সাহাবউদ্দিন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পালা। র‌্যাবের পক্ষ থেকে গতকাল হাসপাতালটিতে অভিযান চালানো হয়, বেরিয়ে আসে পিলে চমকানো তথ্য। এতদিন শোনা গেছে করোনার ভুয়া নেগেটিভ রিপোর্টের কথা। এবার জানা গেল, রিপোর্ট নেগেটিভ আসলেও পজিটিভ করে দেওয়া হতো মোটা অংকের টাকা আদায়ের জন্য।

sahabuddin medical logo

গতকাল দুপুর থেকে রাত পর্যন্ত অভিযান চলে রাজধানীর গুলশানে অবস্থিত সাহাবউদ্দিন মেডিকেল কলেজে। নানা অসঙ্গতির পাশাপাশি করোনার নেগেটিভ রিপোর্ট পজিটিভ বানিয়ে দেওয়ার প্রমাণও পায় র‌্যাব। ভুয়া পজিটিভ রিপোর্ট বানিয়ে তারা রোগীকে ভয় দেখাতেন এবং দ্রুত হাসপাতালের ভর্তি হতে বলতেন। কয়েকদিন পর নমুনা নিয়ে একটা নেগেটিভ রিপোর্ট বানিয়ে হাসপাতাল থেকে রিলিজ দিতেন রোগীকে। ভর্তি থাকা ওই সময়টার জন্য রোগীর কাছে হাতিয়ে নিতেন লাখ লাখ টাকা।

র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারোয়ার আলম ছিলেন অভিযানের নেতৃত্বে। তিনি বলেন, হাসপাতালটির ব্যাপারে আমরা নানা অভিযোগ পেয়েছি। অভিযানে সেগুলোর প্রমাণও মিলেছে। মেয়াদোত্তীর্ণ লাইসেন্স দিয়েই চলছিল হাসপাতাল। এছাড়া করোনা পরীক্ষার অনুমোদন না থাকার পরও তারা পরীক্ষা চালিয়ে গেছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এই হাসপাতালকে নমুনা পরীক্ষার অনুমতি দিলেও পরে তা বাতিল করা হয়েছিল।

sahabuddin medical rab1

সারোয়ার আলম আরো বলেন, অনুমোদনহীন হয়েও কোভিড-১৯ ও এন্টিবডি টেস্টের মাধ্যমে মানুষের কাছ থেকে অতিরিক্ত ফি নিতো কর্তৃপক্ষ। এছাড়া নকল পজিটিভ রিপোর্ট বানিয়ে সুস্থ মানুষকেও হাসপাতালে ভর্তি করিয়ে লাখ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছে এই হাসপাতালের লোকজন।

Leave a Reply