Monday, June 29মাদার টিভি
Shadow

রাণীনগর-কালীগঞ্জ-আত্রাই সড়ক যেন মৃত্যু ফাঁদ ॥ জনদুর্ভোগ চরমে

এলজিইডির আওতায় নওগাঁর রাণীনগর-কালীগঞ্জ-আত্রাই সড়ক একটি জনগুরুত্বপূর্ন সড়ক। বর্তমানে এই সড়কের বিভিন্ন জায়গায় বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়ে সড়কটি এখন যেন মৃত্যুর ফাঁদে পরিণত হয়েছে। বিশেষ করে সড়কের কালীগঞ্জ থেকে আত্রাই সদর পর্যন্ত ১৬কিলোমিটার রাস্তার প্রায় সব জায়গাতে কার্পেটিং উঠে গিয়ে সৃষ্টি হয়েছে ছোট ছোট পুকুরে। এছাড়াও বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় সামান্য বৃষ্টি হলেই ওই গর্তগুলোতে পানি জমে যাওয়ায় আর যানবাহন চলাচল করতে পারে না। বর্তমানে এই সড়ক দেখে মনে হবে যেন চাষ করা ধানের জমি।
অফিস সূত্রে জানা যায়, এসড়ক দিয়েই যেতে হয় বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের স্মৃতি বিজড়িত আত্রাই উপজেলার পতিসর কুঠিবাড়িতে। যেখানে প্রতিনিয়ত পর্যটকদের রয়েছে আসা-যাওয়া। এ ছাড়াও আত্রাই থেকে বগুড়ার সাথে যোগাযোগের একমাত্র রাস্তা আত্রাই-কালীগঞ্জ সড়ক। এদিকে উপজেলার ভোঁপাড়া ইউনিয়নের কাশিয়াবাড়ি, সোনাইডাঙ্গা, বাঁকা, মনিয়ারী ইউনিয়নের কচুয়া, পালশা, নওদুলী, দিঘীরপাড়, মস্কিপুরসহ ওই এলাকার অর্ধশতাধিক গ্রামের কয়েক লাখ মানুষের উপজেলার সাথে যোগাযোগের জন্য এ সড়কের বিকল্প নেই। প্রতিনিয়তই এলাকার হাজার হাজার জনগণকে বিভিন্ন প্রয়োজনে এ সড়ক দিয়ে বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করতে চরম দুর্ভোগের শিকার হতে হচ্ছে। বিশেষ করে কোন রোগীকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসতে তাদের দুর্ভোগ আরও বেড়ে যায়। রোগী আরো কয়েকগুন বেশি অসুস্থ্য হয়ে পড়ে। অনেক ক্ষেত্রে সুস্থ্য লোকও এ সড়ক দিয়ে চলাচল করতে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন। এ ছাড়াও প্রতিনিয়ত ঘটছে ছোট বড় অনেক দুর্ঘটনা।
সিএনজি চালক রাজু, আরমানসহ অনেকেই বলেন, প্রতিদিন শতাধিক সিএনজি এই সড়ক দিয়ে চলাচল করে। বেশ কয়েক বছর যাবত সড়কের এই বেহাল দশা। আমাদের সিএনজি চালকরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এ সড়কে সিএনজি চালাই। রাস্তার বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্ত হওয়ায় ওই জায়গাগুলোতে বিভিন্ন সময় ভটভটি, অটোরিক্সা ও সিএনজি উল্টে গিয়ে অনেকে আহতও হয়েছেন। জনদুর্ভোগ লাঘবে সড়কটি দ্রুত সংস্কার করা প্রয়োজন।
নওদুলী গ্রামের আলহাজ্ব শফির উদ্দিন বলেন, বিভিন্ন কাজে আমাদের প্রতিনিয়ত উপজেলায় যাতায়াত করতে হয়। সড়কটির এ বেহাল দশা হওয়ায় জীবনের ঝুঁকি নিয়েই আমাদের চলাচল করতে হচ্ছে।
নওগাঁ এলজিইডির সিনিয়র সহকারী প্রকৌশলী মোবারক হোসেন বলেন, রাণীনগর-কালীগঞ্জ-আত্রাই সড়কের সংস্কার কাজের দরপত্র আহবান করা হয়েছে। ঠিকাদারও নির্বাচন হয়েছে। বর্ষাকাল শেষ হলেই কাজ শুরু করা হবে। তিনি আরো বলেন, সড়কটির প্রস্থ্য বৃদ্ধিসহ টেকসই সড়ক হিসেবে নির্মাণ করা হবে।

Leave a Reply